Header Ads

মুভি রিভিউ বাজ: ববি’র সুপারহিরো ছবি ’বিজলী’!


[রিভিউ : ঢালিউড]

’বিজলী’  - ছবির দর্শক রিভিউ!


বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে ১৩ এপ্রিল ঢালিউড বক্স অফিসে মুক্তি পেয়েছে ববি’অভিনীত সুপারহিরো ভিত্তিক ছবি ‘বিজলী’। বড় পর্দায় এ ছবিটি দেখে দর্শকরা তাদের সামাজিক মাধ্যমে কেমন রিভিউ করছে সেটাই এ পোস্টের মাধ্যমে তুলে ধরা হল। ’রঙধারা’ সামাজিক মাধ্যম ঘেটে যুক্তিসঙ্গত রিভিউ গুলোই কেবল তুলে ধরার চেষ্টা করেছে।

মোট রিভিউ সংগ্রহ : ৪
পজিটিভ রিভিউ : ৩
নিরপেক্ষ রিভিউ : ০
নেগেটিভ রিভিউ : ১
রিভিউ গড় : ২.৫/৫
রিভিউ সারমর্ম : সন্তোষজনক পজিটিভ!


মুভি রিভিউ বাজ :

মাসুম আহমেদ আদি ’ফেইসবুক’-এর একটি গ্রুপে বলেছেন :
”গল্পটা ভালো লাগেনি। আরো সময় নিয়ে আরো যত্ন করে গল্পটা লেখা যেত। যা তা একটা গল্পকে উপস্থাপন করার চেষ্টা ছিল একটু রঙ চং মেখে। যাকে সারাজীবন ডাক্তারি করতে দেখানো হয়েছে সে ইউটিউবের অনেকের আইডি হ্যাক করে ভিডিও ডিলিট করে ফেলে? কোল্ড ফিউশন নিয়ে লেখকের কতটুকু পড়াশুনা আছে আমার জানার খুব ইচ্ছা ছিল। শুধু উইকিপিডিয়া থেকে হাল্কা ধারণা নিয়েছেন বলে মনে হলো। যাইহোক, যারা দেখতে চাইছেন তারা নিজ দায়িত্বে দেখবেন।”

ফাহিম মুনতাসির ‘ফেইসবুক’ এর একটি গ্রুপে বলেছেন :
”গতবছর যখন বলাকায় "পরবাসিনী" দেখতে যাই, মোটামুটি ৭৫% এক্সপেক্টেশন নিয়ে গিয়েছিলাম নতুন কিছু একটা পাওয়ার। শুনেছিলাম সেখানে প্রায় ২৫ মিনিটের একটি VFX work রয়েছে, তাই আগ্রহটাও অনেক বেশি ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চুড়ান্ত হতাশ হয়ে হল থেকে বের হয়েছিলাম। এবারও হলমুখী হওয়ার আগে বারবার আমার সেই হতাশাজনক দিনটার কথাই মনে পড়ছিল। তবে এবার আমি পুরোপুরি না হলেও ৭৫% সন্তুষ্টি নিয়ে ঘরে ফিরেছি, এবং আমি হলফ করে বলতে পারি এটি "পরবাসিনী" তুলনায় অনেক ভালো।

পড়ুন : বক্সঅফিস সংঘর্ষে জড়ানো সব খবর!

Sam Shakil ‘ফেইসবুক’ এর একটি গ্রুপে বলেছেন :
“মূলত ফার্স্ট টাইম সুপারহিরো মুভি হিসেবে প্রসংশার দাবিদার। তবে গল্পের কয়েক জায়গাতে খাপছাড়া খাপছাড়া ভাব রয়েছে। ছবির কেন্দ্রীয় চরিত্রে ববি দূর্দান্ত অভিনয় করেছে। যারা লাল চুল নিয়ে ট্রল করছিলো তাদের কে বলছি সিনেমার ভিতরে বেশ মানানসই আকর্ষনীয় লেগেছে ববিকে। এ্যাকশন সিনে নিঃসন্দেহে বেস্ট টাই দিয়েছে। নায়কটাকে পজিটিভলি নিতে পারেনি বেশিরভাগ লোক; কি জন্য জানিনা তবে কমার্শিয়াল মুভি ফ্যাক্ট হতে পারে। সাপোর্টিং রোল গুলোতে লিজেন্ড বাহিনীর মেলার মত।”

হাসান আবির ‘ফেইসবুক’ এর একটি গ্রুপে বলেছেন :
“যেকোন ছবির চমৎকার সিনেমাটোগ্রাফিককে ছবির সৌদর্য্য বলা হয় আর সে ক্ষেত্রে এই 'বিজলী' ছবিটির সিনেমাটোগ্রাফি ছিলো দেখার মতো। সাথে ছবিটির লোকেশানের প্রশংসা না করলে অন্যায় করা হবে। লোকেশান দেখলে বুঝাই যায় খরচের কোন কমতি করেনি প্রযোজক ছবিটিকে আর্কষনীয় ভাবে তুলে ধরাতে। বিশেষ করে আইসল্যান্ডে করা ববি-রণবীরের গানের দৃশ্যগুলি দর্শক উপভোগ করেছে মন ভরে। সাথে আমাদের দেশের সিলেট জায়গাকেও দারুন ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। তবে সবচেয়ে ছবির যে বিষয়কে ধন্যবাদ দিতে হয় তা হলো ছবিতে স্পেশাল ইফেক্টসের ব্যবহার। আমি হলফ করে বলতে পারি এমন ভাবে স্পেশাল ইফেক্টসের ব্যবহার দেখানো হয়নি আর কোন বাংলা ছবিতে। এক্ষেত্রে পরিচালক-কে ১০/১০ দিতেই হয়, বুঝাই যায় অনেক পরিশ্রম আর সর্তক থাকতে হয়েছে তাকে এসবের ক্ষেত্রে, তবে এতে যে তারা পুরোটা সার্থক হয়েছে তা অনায়াসে বলে দেয়া যাবে ছবিটির দেখার মাধ্যমে!”

বিশেষ দ্রষ্টব্য:
এ পোস্টে প্রকাশিত সকল রিভিউ সামাজিক সাইট থেকে সরাসরি সংগৃহীত! তবে কেবল মাত্র শব্দের ভুলে কিছুটা সংশোধন আনার চেষ্টা হয়ে থাকে।

অনেক সময় অনুমতি না নিয়ে রিভিউ গুলো প্রকাশ করা হয়ে থাকে; সে ক্ষেত্রে ’রঙধারা’ আগে থেকে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছে।

আপনার রিভিউ প্রকাশ করার জন্য এখানে ক্লিক করতে পারেন; সেই সাথে এ পোস্টে  প্রকাশিত আপনার রিভিউ মুছে ফেলার জন্য এখানে ক্লিক করতে পারেন।

’রঙধারা’ সংগ্রহকৃত রিভিউগুলো নিরেপক্ষভাবে প্রকাশ করার চেষ্টা করেছে; ফলে কারো কোন ক্ষতি করার অভিলাষ ‘রঙধারা’র নেই।

আরো পড়ুন :


কোন মন্তব্য নেই

Blogger দ্বারা পরিচালিত.